বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ৬ মাস আগেই কোচিং শুরু!

এসব কয়েকটি কোচিং সেন্টারে কথা বলে জানা গেছে, বিসিএসের বিভিন্ন কোচিং সেন্টার প্রায় চার মাস আগে থেকেই ৪৫তম বিসিএসের ক্লাস শুরু করে দিয়েছে। সাধারণত যাঁদের চাকরির বয়স আছে ও যাঁদের বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা শেষ পর্যায়ে, তাঁরাই এসব কোচিং সেন্টারে ভর্তি হচ্ছেন।

bcs
কয়েকটি কোচিং সেন্টারে কথা বলে জানা গেল, ৪৪তম বিসিএসের পর এখন ৪৫তম বিসিএস নিয়ে তাঁরা নানা কার্যক্রম শুরু করেছে। বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষা যেসব এলাকায় হয়, সেখানে ফ্রি লিফলেট বিতরণ করে কোচিং সেন্টারগুলো। প্রতিটি কোচিং সেন্টার প্রথমে ৪৫তম বিসিএসের ভর্তির ফ্রি সেমিনারের ঘোষণা দেয়। সেখান থেকে যাঁরা সেমিনারে অংশ নেন, তাঁদের নানা অফার দিয়ে ভর্তির চেষ্টা করা হয়। কোচিংগুলোর একেকটিতে ভর্তির ফি ৮ থেকে ১৫ হাজার টাকা নেওয়া হচ্ছে।

নীলক্ষেতে বেলাল আহমেদ রাজু পরিচালিত বিসিএস কনফিডেন্সের প্রধান অফিসে কথা হয় প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী সোহানুর রহমানের সঙ্গে। তিনি জানান, চার মাস আগে থেকেই ৪৫তম বিসিএস প্রিলিমিনারির ক্লাস শুরু হয়েছে। এখন প্রতিদিন চার সেশনে নিয়মিত ক্লাস হচ্ছে। ভর্তি ফি ২০ হাজার ২০০ টাকা, কিন্তু ছাড় দিয়ে এখন ১৫ হাজার টাকায় শিক্ষার্থী ভর্তি চলছে। এসব কোচিং সেন্টার সাধারণত পরীক্ষার আগে পর্যন্ত ক্লাস নিয়ে থাকে।

ফার্মগেট এলাকার বিসিএস কোচিং সেন্টার বিসিএস কনফার্মের এক কর্মী নাম প্রকাশ না করার শর্তে প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিসিএসের প্রথম ধাপ প্রিলিমিনারিতে সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী আবেদন করে থাকেন। সবাই চান এই ধাপে পাস করতে। কারণ, এই ধাপে পাস না করে পরের ধাপে যাওয়া যাবে না। আর প্রিলিমিনারিতে এ জন্য বেশি শিক্ষার্থী কোচিংয়ে ক্লাস করতে আসেন। তাঁদের টানতে কোচিং সেন্টারগুলো বিসিএসের বিজ্ঞপ্তির ছয় মাস আগেই ক্লাস চালুর ঘোষণা দিয়ে পরীক্ষার্থী ভর্তি করানো শুরু করে। আমরাই তাই করেছি। বিসিএসের কোচিংয়ে লোভনীয় অফার দিয়ে বিভিন্ন কোচিং সেন্টারের মধ্যে প্রতিযোগিতা চালু হয়ে গেছে।’

বিসিএসের চাকরি আমার অনেক দিনের স্বপ্ন। আমার অনার্সের পড়াশোনা শেষ পর্যায়ে, তাই সামনের ৪৫তম বিসিএসে আমার অংশ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। এ জন্য এই সপ্তাহে একটি কোচিং সেন্টারে ভর্তি হব।

মিজানুর রহমান, ঢাকা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী

ঢাকা কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী মিজানুর রহমান বলেন, ‘কয়েক মাস ধরে ফেসবুকে দেখছি, ৪৫তম বিসিএসের কোচিং চালু করে দিয়েছে কোচিং সেন্টারগুলো। তাদের অফার দেখে আমিও দুটি কোচিং সেন্টারের ফ্রি সেমিনারে অংশ নিয়েছিলাম। বিসিএসের চাকরি আমার অনেক দিনের স্বপ্ন। আমার অনার্সের পড়াশোনা শেষ পর্যায়ে, তাই সামনের ৪৫তম বিসিএসে আমার অংশ নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। এ জন্য এই সপ্তাহে একটি কোচিং সেন্টারে ভর্তি হব।’ তবে কোচিং সেন্টারের ভর্তির টাকা অনেক বেশি বলে মনে করেন মিজানুর।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী ও চাকরিপ্রার্থী সাব্বির হোসেন বলেন, বিসিএসের কোচিং ব্যবসা এখন খুবই জমজমাট। এই চাকরির দিকেই সব তরুণের নজর। আর সেই সুযোগ নিচ্ছে কোচিং সেন্টারগুলো। এমন ভাবে তারা অফার দেয় যে তরুণেরাও সেদিকে ঝুঁকে ভর্তি হন। এমনও আছে, এক প্রার্থী দুটি কোচিং সেন্টারেও ক্লাস করেন।

৪৫তম বিসিএসের বিষয়ে জানতে চাইলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র প্রথম আলোকে বলেন, এক বছর আগে সর্বশেষ ৪৪তম সাধারণ বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছিল। সেই আলোকে এক বছর বিরতি দিয়ে নতুন বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হতে পারে। নভেম্বর মাসের যেকোনো সময়ে এটি প্রকাশিত হতে পারে। বিভিন্ন ক্যাডারে কতজনকে নেওয়া হবে, সেই বিষয়গুলো এখন সমন্বয়ের কাজ চলছে। অনেক মন্ত্রণালয় থেকে ক্যাডারের চাহিদা ইতিমধ্যে আসতে শুরু করেছে। পদ নির্দিষ্ট করে পিএসসিকে সেই পদের তালিকা পাঠিয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জন্য বলা হবে। তবে পিএসসি জানিয়েছে, এখন থেকে প্রতিবছরের ৩০ নভেম্বর নতুন বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হবে। সেই ঘোষণা অনুসারে নভেম্বরের শেষে ৪৫তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হবে।

Leave a Comment