বাস্তব জীবনে সবজি বিক্রি করতেন পর্দার ঋত্বিক মুখোপাধ্যায়

‘এই পথ যদি না শেষ হয়’ এর সাত্যকি এখন বহু বাংলার মেয়ের পছন্দের পুরুষ। অমন নম্র স্বভাবের ছেলে সকলেরই কাম্য। বউকে অফুরন্ত ভালোবাসে যে, মাকে মাথায় করে রাখে যেই ছেলে সেই ছেলে বহু মেয়েই মনে মনে চেয়ে থাকে। এখন সাত্যকি ওরফে ঋত্বিক মুখোপাধ্যায়হলেন বাংলার ঘরের ছেলে। কিন্তু, ঘরের ছেলে হওয়ার পথ বিশেষ মসৃণ ছিল না তার, আজ সেই গল্পই শোনানো হবে।

এই পথ যদি না শেষ হয় মেগা ধারাবাহিকে লিড রোলে অভিনয় করছেন অন্বেষা হাজরা এবং ঋত্বিক মুখোপাধ্যায়। এটাই প্রথম লিড রোল ঋত্বিকের। এর আগে প্রথমা কাদম্বিনী গল্পে একটি কলেজ স্টুডেন্টের চরিত্রে অভিনয় করেন। তার পরের গল্প খুবই কঠিন।

একটা সময় চুটিয়ে থিয়েটার করতেন ঋত্বিক। কিন্তু, টাকা কোথায়? বড় হওয়ার পর বাবা বা মায়ের কাছে হাত পাতা খুবই কষ্টের। কারণ, প্রত্যেক মা বাবাই বৃদ্ধ হন, তখন ছেলে মেয়েরা হয়ে ওঠে সহায় সম্বল। এমত অবস্থায় সবজি বিক্রি পর্যন্ত করতে হয় অভিনেতাকে। সেই সময় চলছিল করোনা’র দাপট। ইন্ডাস্ট্রি ছিল পুরোপুরি বন্ধ। পুরোনো সিরিয়ালের রিপিট টেলিকাস্ট চলতো। তাই কাজের কোনো নাম গন্ধ নেই। অগ্যতা সবজি বিক্রি করতে পথে নেমেছিলেন আজকের সাত্যকি।

বেশ সবজি বিক্রি হচ্ছিল। যখন করোনা র প্রভাব কমতে থাকে, ধীরে ধীরে বাজার বসতে থাকে, মানে যারা পাকা ব্যবসায়ী তারা দোকান খুলতে শুরু করেন। ব্যাস, লাটে ওঠে ঋত্বিকের সবজি। দিনের পর দিন সবজি পচতে শুরু করে। কারণ, খরিদ্দার নেই বিশেষ।

Leave a Comment