হলদিরাম: একটি ছোট খাবারের দোকান থেকে আজ ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্র্যান্ড

মানব জীবনে বেঁচে থাকার জন্য খাদ্যের গুরুত্ব অপরিসীম। ভাত,রুটি,সবজি ইত্যাদির বাইরেও এমন কিছু প্রকারের খাবার আছে যা মানুষকে অনেকটাই আকৃষ্ট করে। আপনি কোনো না কোনো সময়ে হলদিরামের আলু ভুজিয়া বা লাড্ডুর স্বাদ নিশ্চই নিয়েছেন? “হলদিরাম” ভারতের একটি সুপরিচিত ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছে বর্তমান সময়ে। যার জনপ্রিয়তা আকাশ ছোঁয়া।

আসুন জেনে নেওয়া যাক হলদিরামের এমন কিছু অজানা তথ্য যা জানলে আপনিও একজন ভারতীয় হিসেবে গর্ভিত হবেন। ভারতে হলদিরাম ব্র্যান্ডের ইতিহাস আজকের বা আগামীকালের নয়, স্বাধীনতারও আগে এই কোম্পানি স্থাপিত হয়। ১৯৩৭ সালে বিকানেরে স্থাপিত হয়েছিল হলদিরাম, প্রায় ৭৯ বছর আগে। যদিও সেই সময়ে এটি একটি ছোট নাস্তার দোকান হিসাবে খোলা হয়েছিল।

“গঙ্গাভিষন আগরওয়াল” বিকানেরে এই ছোট নাস্তার দোকান খুলেছিলেন।এই দোকানের মাধ্যমে তিনি ব্যবসায় প্রথম পা রাখেন। এইভাবে, কিছু দিনের মধ্যে, গঙ্গাভিষণ জির দোকান বিকানেরে ভুজিয়াওয়ালে নামে বিখ্যাত হয়ে ওঠে। পরবর্তীতে তিনি তার দোকানের নাম পরিবর্তন করে হলদিরাম রাখেন। আসলে ‘হলদিরাম’ ছিল গঙ্গাভিষণ জির আরেক নাম। হলদিরাম কোম্পানি পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় তার প্রথম উৎপাদন কারখানা শুরু করে।

পরবর্তীতে, হলদিরাম ১৯৭০ সালে জয়পুরে এবং তারপর ১৯৮২ সালে দেশের রাজধানী দিল্লিতে তার আউটলেটগুলি শুরু করেন। এইভাবে, মাত্র কয়েক বছর ব্যবসা করার পরে, ২০০৩ সালে, হলদিরাম তার পণ্যদ্রব্য আমেরিকায় রপ্তানি শুরু করেন।যার জন্য লাভের পাশাপাশি হলদিরাম প্রচুর সুনামও অর্জন করে।

এছাড়াও, পশ্চিম এবং দক্ষিণ ভারতে হলদিরামের পণ্যের বার্ষিক বিক্রয় দাঁড়িয়েছে ১২২৫ কোটি টাকা (রুপি)। পূর্ব ভারতে, হলদিরাম ২১০ কোটি টাকা লাভ করতে সক্ষম হয়েছে। ২০১৯ সালে, হলদিরামের বার্ষিক আয় ছিল ৭১৩০কোটি টাকা অর্থাৎ ১.০ বিলিয়ন ডলার। এটি থেকে অনুমান করা যেতে পারে যে হালদিরাম সারা ভারতে কতটা জনপ্রিয় ব্র্যান্ড।

Leave a Comment