লন্ডনের চাকরি ছেড়ে গ্রামে ফিরেছেন স্বামী স্ত্রী, গায়-মহিষ পালন করে কামাচ্ছেন মাসিক ৫ লাখ টাকা।

বিলাসবহুল জীবনযাপন কে না পছন্দ করে! প্রত্যেকেই চায় ভাল চাকরীর মাধ্যমে প্রচুর অর্থ উপার্জন করে নিজের এবং পরিবারের স্বপ্ন পূরণ করতে। একটা খুশি ও সুখী পরিবার প্রত্যেকেরই কাম্য। কিন্তু শুনেছেন কি কখনো বিদেশি লাখ টাকার চাকরি ছেড়ে দিয়ে গ্রামে এসে কৃষিকাজ করতে? আসুন জেনে নেওয়া যাক এমনই একটা কাহিনী।
আরো পড়ুনঃ
জেদ থেকেই ২৫ হাজার টাকায় শুরু ব্যবসা এখন ৩০০০ কোটিতে!

১ম বিসিএসেই তকী ফয়সালের প্রশাসন ক্যাডারে প্রথম হবার গল্প!

গুজরাটের পোরবন্দরের বারান গ্রামের বাসিন্দা “রামদে খুটি”, তার স্ত্রীকে নিয়ে ইংল্যান্ডে চাকরি করতেন। দুই জনেই লাখ টাকা বেতন পেতেন। ২০০৬ সালে প্রথম বার ইংল্যান্ডে জান রামদে। ২০০৮ সালে তিনি বিবাহ করেন ভারতিকে। তখন ভারতী রাজকোটে এয়ারপোর্ট ম্যানেজমেন্ট এবং এয়ার হোস্টেস নিয়ে পড়াশোনা করছিলেন।

bdnews88 4

২০১০ সালে ভারতী তার শিক্ষা শেষ করার পর, তার স্বামী রামের সাথে বসবাসের জন্য লন্ডনে চলে আসেন। এবং সেখানে তিনি ইন্টারন্যাশনাল ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্টে ডিগ্রি অর্জন করেন। স্নাতক হওয়ার পর, তিনি ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের হিথ্রো বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার কোর্স করেন এবং তারপর সেখানেই চাকরি শুরু করেন।

স্বামী ও স্ত্রী দুজনেই লাখ টাকা ইনকামের পাশাপাশি বিদেশে বিলাসবহুল জীবনযাপন করছিলেন। কিন্ত হটাৎ তারা সিদ্ধান্ত নেন বিদেশের কাজ ছেড়ে দিয়ে গ্রামে চলে আসবেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী তারা গ্রামে চলে আসেন এবং কৃষি কাজ ও পশুপালন শুরু করেন। যদিও এই কাজ প্রথমে তাদের জন্য মোটেও সহজ ছিলো না।

হয়তো অনেকেই ভাবছেন বিদেশি বিলাসবহুল জীবন ছেড়ে কেন তারা গ্রামে চলে এলেন? প্রকৃত কারণ স্বরূপ জানা যায়, গ্রামে তার (রামদে) বাবা ও মা একা থাকেন। বৃদ্ধ বয়সে তাদের যত্ন বা দেখাশোনার জন্য কেউ ছিলো না। সন্তান হিসেবে বাবা মায়ের যত্ন নেওয়া টা প্রধান কর্তব্য বলে মনে করেন তিনি। তাই তারা গ্রামে এসে কৃষি কাজ করে ভালো অর্থ উপার্জন করছেন ও মা-বাবার যত্ন নিচ্ছেন।

Leave a Comment